সর্বশেষ

» মার্কিন নির্বাচন : বৈধ ভোট গুনলে আমিই জয়ী হব: ট্রাম্প

প্রকাশিত: ০৬. নভেম্বর. ২০২০ | শুক্রবার

চেম্বার ডেস্ক:: মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোট গণনা চলছে। ডেমোক্র্যাটদলীয় প্রার্থী জো বাইডেন প্রতিদ্বন্দ্বী ডোনাল্ড ট্রাম্পের চেয়ে স্পষ্টত এগিয়ে রয়েছেন। তবে এই ফল মানতে নারাজ ট্রাম্প। এ রিপাবলিকান প্রার্থীর দাবি, তিনিই ‘আসল জয়ী’। তার সঙ্গে প্রতারণা করা হচ্ছে।  খবর সিএনএন ও ডয়েচে ভেলের।

 

ভোটের পর দিন হোয়াইট হাউসে এক বক্তৃতায় ট্রাম্প বলেছেন, আমি প্রতারিত হয়েছি। পোস্টাল ব্যালটে ব্যাপক কারচুপি হয়েছে। ডেমোক্র্যাটরা কারচুপি করেছেন। শুধু বৈধ ভোটের গণনা হলে আমি জয়ী। পোস্টাল ব্যালটকে তিনি গুনতে নারাজ।

 

নির্বাচনে হারলে যে ফল মানবেন না, সেটি আগেই ইঙ্গিত দিয়ে রেখেছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।  প্রচার চলার সময়েও বারবার বলেছেন, ফল বিপক্ষে গেলে তিনি হার মানবেন না। সুপ্রিমকোর্টে যাবেন।  আইনি লড়াই লড়বেন। হোয়াইট হাউসের দখল ছাড়বেন না। তখন থেকেই তিনি বলে যাচ্ছেন, পোস্টাল ব্যালটে ব্যাপক কারচুপি হয়েছে।  ভোটগ্রহণের পর ট্রাম্প সেই পথেই হেঁটেছেন। ভোট গণনা বন্ধে মামলা করেছেন। মিশিগানে করা মামলা খারিজও হয়ে গেছে।

 

 

করোনাভাইরাসের কারণে এবার মার্কিন নির্বাচনে বহু ভোটার বুথে গিয়ে ভোট দেননি। পোস্টাল ব্যালটের মাধ্যমেই রায় জানিয়েছেন। তবে ট্রাম্প সমর্থকরা আবার বুথে গিয়ে ভোট দেয়া পছন্দ করেছেন।  কিন্তু বাইডেন সমর্থকরা ঝুঁকি নিয়ে ভোটকেন্দ্রে যাননি।

 

এখন পর্যন্ত ৪৫ রাজ্যের ফল ঘোষণা করা হয়েছে। সেগুলোতে ইলেকটোরাল ভোটে বাইডেন ২৬৪টি পেয়ে এগিয়ে আছেন। আর ট্রাম্প পেয়েছেন ২১৪টি। নেভাদা, জর্জিয়া, আলাস্কা, নর্থ ক্যারোলিনা ও পেনসিলভানিয়ায় ভোট গণনা চলছে।

 

এরই মধ্যে ট্রাম্পের দল এখন প্রতিটি রাজ্যে কত ভোট কারচুপি হয়েছে সেই সংখ্যা দিতে শুরু করেছে। অ্যাটর্নি জেনারেলকে নেভাদার রিপাবলিকান পার্টি জানিয়েছে, অন্তত তিন হাজার ৬৩ ভোট জাল। যারা রাজ্য ছেড়ে চলে গেছেন, তারা এই ভোট দিয়েছেন বলে ট্রাম্পের দলের অভিযোগ।

 

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ট্রাম্প অভিযোগ করেন, পেনসিলভানিয়ায় গণনায় কারচুপি হয়েছে এবং গণনা হচ্ছে ডেমোক্র্যাটদের নিয়ন্ত্রণে। কিন্তু রাজ্যের কর্মকর্তারা এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

 

হেরে গেলে ট্রাম্পের শেষ আশা তাই সুপ্রিম কোর্টে বিচার। কারণ মামলা শেষ পর্যন্ত সুপ্রিমকোর্টে হবে।

[hupso]

সর্বশেষ

আর্কাইভ

November 2020
M T W T F S S
 1
2345678
9101112131415
16171819202122
23242526272829
30