» সৌদিতে শিগগিরই কফিলপ্রথা থেকে মুক্তি পাচ্ছেন প্রবাসীরা

প্রকাশিত: ২৮. অক্টোবর. ২০২০ | বুধবার

চেম্বার ডেস্ক:: সৌদি আরবে শিগগিরই উঠে যাচ্ছে কফিলপ্রথা। মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) দেশটির মানবসম্পদ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, দ্রুতই তা কার্যকর হবে।

 

সৌদি আরবের শ্রম বাজারের উন্নয়নে বেশ কিছু সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে দেশটি । তারই অংশ হিসেবে কয়েক দশক ধরে চলে আসা এই প্রথা বাতিলের কথা ভাবছে সৌদি সরকার। এ সিদ্ধান্ত কার্যকরে বেশ কিছু পরিকল্পনা রয়েছে, এগুলো ঠিকভাবে সম্পন্ন হলেই চূড়ান্ত হবে বিষয়টি।

আগামী বছরের প্রথম দিকেই কফিলপ্রথা বাতিলের সিদ্ধান্ত কার্যকর হতে পারে। এই প্রথায় সৌদি নাগরিকের অধীনে দেশটিতে প্রবাসীদের যে কোনো কাজ বা ব্যবসা করতে হয়। বিনিময়ে কফিলকে প্রতিমাসে লাভের অংশবিশেষ দিতে হয় সংশ্লিষ্ট প্রবাসীকে। তবে কফিল প্রথা বাতিল হয়ে গেলে প্রবাসীরা সরাসরি শ্রম মন্ত্রণালয়ের আওতায় চলে যাবেন।

 

প্রায় সাত দশক ধরে সৌদিতে কফিল বা কাফালা পদ্ধতি চালু রয়েছে। এ পদ্ধতির কারণে সৌদিতে কর্মরত বিদেশি শ্রমিকরা কোনো ধরনের স্বাধীনতা ভোগ করতে পারেন না। তাদের তাদের নিয়োগকর্তার ইচ্ছামতো চলতে হয়।

 

সৌদি কফিল বা নিয়োগকর্তা কাফালা পদ্ধতি ব্যবহার করে আইনের মারপ্যাচে প্রবাসীদের বিভিন্নভাবে হয়রানি করে থাকেন। এ পদ্ধতি বাতিল হলে প্রবাসীরা তাদের কর্মজীবনে অনেকটা স্বাধীন হবেন এবং ইচ্ছামতো দিনাতিপাত করতে পারবেন। প্রথম থেকেই কাফালা পদ্ধতির সমালোচনা করে আসছে মানবাধিকার সংগঠনগুলো।

 

এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সৌদির মানবসম্পদ ও সামাজিক উন্নয়ন বিষয়ক মন্ত্রণালয় আগামী সপ্তাহে একটি নতুন উদ্যোগের কথা ঘোষণা করতে চাচ্ছে যেখানে, নিয়োগকারী এবং প্রবাসী শ্রমিকদের মধ্যে চুক্তিভিত্তিক সম্পর্কের উন্নতি ঘটবে।

 

২০২১ সালের প্রথম ছয় মাসের মধ্যেই এই উদ্যোগ বাস্তবায়ন করা হবে বলে জানানো হয়েছে। তবে এ বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য প্রকাশ করা হয়নি। কাফালা পদ্ধতির অধীনে সৌদিতে বর্তমানে ১ কোটির বেশি বিদেশি শ্রমিক কর্মরত আছেন।

[hupso]

সর্বশেষ