» ভারতে বিজিবি-বিএসএফ মহাপরিচালক পর্যায়ে সীমান্ত সম্মেলন সম্পন্ন

প্রকাশিত: ২৫. ডিসেম্বর. ২০২০ | শুক্রবার

চেম্বার ডেস্ক:: 

বাংলাদেশ ও ভারতের সীমান্ত সুরক্ষায় দুদেশের সীমান্তরক্ষি বাহিনী দৃঢ় অঙ্গিকার মধ্য দিয়ে
“বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ” (বিজিবি) ও ভারতীয় “বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্স” ( বিএসএফ) এর মহা পরিচালক পর্যায়ের ৫১তম সীমান্ত সম্মেলন শেষ হয়েছে।

গত ২২ ডিসেম্বর থেকে-২৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত ভারতের গৌহাটিতে ৫ দিন ব্যাপী এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনের সময় ২৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত নির্ধারিত থাকলেও ২৫ ডিসেম্বর উচ্চপর্যায়ের এ সম্মেলনের মুল আনুষ্ঠানিকতা শেষ হয়েছে। ২৬ ডিসেম্বর সম্মেলনের অংশ হিসেবে দুদেশের প্রতিনিধি দলের সদস্যরা ভারতের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ এলাকা পরিদর্শনের কথা রয়েছে।
বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)’র জনসংযোগ কর্মকর্তা মোঃ শরিফুল ইসলাম প্রেরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, ভারতের গৌহাটিতে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে বাংলাদেশের পক্ষে বিজিবি মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো: সাফিনুল ইসলাম, বিজিবিএম(বার), এনডিসি, পিএসসি এর নেতৃত্বে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিসহ ১১ সদস্যের প্রতিনিধিদল ও ভারতের পক্ষে বিএসএফ মহাপরিচালক শ্রী রাকেশ আস্থানা, আইপিএস এর নেতৃত্বে ভারতের স্বরাষ্ট্র ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিসহ ১২ সদস্যের প্রতিনিধিদল অংশগ্রহন করেন।
সম্মেলনে ভারতীয় বিএসএফ মহাপরিচালক বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলকে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানানোর মাধ্যমে উভয় দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর মধ্যে বিদ্যমান বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক ও পারস্পরিক সহযোগিতায় সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন এবং এই সুসম্পর্ক ও পারস্পরিক সহযোগিতা ভবিষ্যতে আরও বৃদ্ধি পাবে বলে দৃঢ় আশাবাদ ব্যক্ত করেন উভয় দেশের নেতৃবৃন্দ । বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলকে উষ্ণ অভ্যর্থনা ও আন্তরিক আতিথেয়তার জন্য বিজিবি মহাপরিচালক বিএসএফ মহাপরিচালককে আন্তরিক ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। তিনি সীমান্তে শান্তি ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে বিজিবি ও বিএসএফ এর সমন্বিত যৌথ কার্যক্রমে সন্তুষ্টি প্রকাশ করে সমন্বিত সীমান্ত ব্যবস্থাপনা পরিকল্পনা (সিবিএমপি) কার্যকরভাবে বজায় রাখার উপর গুরুত্ব আরোপ করা হয়। সম্মেলনে দুদেশের সীমান্ত নিরাপদ ও সুরক্ষায় একযোগে কাজ করার দৃঢ় অঙ্গীকার ব্যাক্ত করে সীমান্তে বিবেদমান বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিযয়ে দুদেশের ঐক্যমত্য সিদ্ধান্ত গ্রহনের মাধ্যমে ২৫ ডিসেম্বর বিকেলে এ সম্মেলন শেষ হয়। পরবর্তী সীমান্ত সম্মেলন আগামী বছর অর্থাৎ ২০২১ সালের এপ্রিল মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহের মধ্যে ঢাকায় অনুষ্ঠানের ব্যাপারে দুদেশ একমত পোষণ করেন।

[hupso]

সর্বশেষ