» কানাইঘাটে ইউএনও’র নানা অনিয়ম-র্দুনীতির প্রতিবাদে সভা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত: ২৭. সেপ্টেম্বর. ২০২০ | রবিবার

কানাইঘাট প্রতিনিধিঃ

সিলেটের কানাইঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জনসাধারণের যাতায়াতের সুবিধার্থে একটি ইর্মাজেন্সি গেইট নির্মাণের দাবীকে কেন্দ্র করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বারিউল করিম খান কর্তৃক আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দকে কটুক্তির করায় প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৪টায় কানাইঘাট উত্তর বাজারে আন-নূর টাওয়ারের সামনে আমরা কানাইঘাটবাসীর ব্যানারে এ প্রতিবাদ সভার আয়োজন করা হয়। উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি কাউন্সিলর মাসুক উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও উপজেলা শ্রমিকলীগের সাধারণ স¤পাদক জুনেদ হাসান জীবানের পরিচালনায় প্রতিবাদ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সাবেক মেয়র লুৎফুর রহমান। বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ স¤পাদক অধ্যক্ষ সিরাজুল ইসলাম, সহ সভাপতি জামাল উদ্দিন, বাজার বণিক সমিতির সাধারণ স¤পাদক আব্দুল হেকিম শামীম, উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নাজমুল ইসলাম হারুন, সাংগঠনিক স¤পাদক গিয়াস উদ্দিন, যুবলীগ নেতা আব্দুল্লাহ আল মুমিন, হেলাল আহমদ, ছাত্রলীগ নেতা রেদোয়ান আহমদ মারুফ, শ্রমিকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আলমগীর হোসেন। প্রতিবাদ সভায় আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ তাদের বক্তব্যে বলেন, স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব হাফিজ আহমদ মজুমদার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জনসাধারণের যাতায়াতের সুবিধার্থে মূল গেইট ছাড়াও একটি ইমার্জেন্সি গেইট নির্মাণের জন্য গত কয়েকদিন পূর্বে একটি ডিও লেটার সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হয়। এছাড়াও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মুমিন চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি লুৎফুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ সিরাজুল ইসলাম হাসপাতালের ইমাজেন্সি গেইট নির্মাণের পক্ষে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে আরেকটি  লিখিত সুপারিশ প্রেরণ করেন। কিন্তু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বারিউল করিম খান এমপি’র ডিওলেটার সহ স্থানীয় আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দকে উপেক্ষা করে গত বৃহ¯পতিবার বিকেল ৪টার দিকে নিজে বৃষ্টিতে ভিজে সরেজমিনে দাড়িয়ে তড়িগড়ি করে নির্ধারিত ঠিকাদার ছাড়া বাহির থেকে মিস্ত্রি এনে ইর্মাজেন্সি গেইটের স্থানে দেয়াল নির্মাণ করেন। এসময় তার সাথে বিপুল সংখ্যক পুলিশ উপস্থিত ছিলেন। ঘটনার সময় স্থানীয় লোকজন এমপির ডিও লেটার ও স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দের মতামত উপেক্ষা করে ইমার্জেন্সেী গেইটের স্থানে দেওয়াল নির্মাণের কথা ইউএনওকে জিজ্ঞেস করলে তিনি স্থানীয় আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দকে কটাক্ষ করে বিরূপপূর্ণ মন্তব্য করেন। এতে দলের নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দিয়েছে বলে প্রতিবাদ সভায় বক্তরা উল্লেখ করেন। এ ছাড়াও তারা বলেন এসব অনিয়ম-দুর্নীতিতে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল কর্মকর্তা ডাঃ আবুল হারিছও জড়িত রয়েছে। তারা উল্লেখ করে বলেন হাসপাতাল গেইটের সামনে ডাঃ আবুল হারিছের আজাদ ফার্মেসী নামে একটি বড় ফার্মেসী ও ডায়াগনস্টিক রয়েছে। যার কারনে ডাঃ আবুল হারিছের মদদে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জনস্বার্থকে উপেক্ষা করে ব্যাক্তি স্বার্থকে প্রধান্য দিয়ে তড়িগড়ি করে দেওয়াল নির্মাণ করেন। প্রতিবাদ সভায় বক্তারা আরো বলেন দীর্ঘ ১৫ বছর থেকে ডাঃ আবুল হারিছ কানাইঘাট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত থাকায় তিনি নানা অনিয়মে জড়িয়ে পড়েছেন। তার ফার্মেসীর স্বার্থ রক্ষার জন্য হাসপাতালের ইমার্জেন্সী গেইট নির্মাণে তার বাধাঁ রয়েছে। সভায় নির্বাহী কর্মকর্তা বারিউল করিম খানের বিরুদ্ধে আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ চরম বিদ্বেষগার প্রকাশ করে বলেন, তিনি কানাইঘাটে আসার পর থেকে সাধারণ মানুষের সাথে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে অনিয়ম-দুর্নীতির সাথে জড়িয়ে পড়েন। যার ফলে সরকারের ভাবমূর্তি সাধারণ মানুষের কাছে চরম ভাবে ক্ষুন্ন হচ্ছে। সভায় বক্তারা হাসপাতালের ইমার্জেন্সী গেইট দ্রুত নির্মাণের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহবান জানান।

[hupso]

সর্বশেষ