সর্বশেষ
|
প্রকাশ: শনিবার, আপডেট : ১৬ মে ২০২০ ০৬:০৫ ঘণ্টা

চাল উৎপাদনে বিশ্বে তৃতীয় অবস্থানে বাংলাদেশ

চেম্বার ডেস্ক: করোনা আতঙ্কে পৃথিবীর মানুষ যখন ঘরবন্দি, তখন খাদ্যসংকটের আরেক আতঙ্ক বিরাজ করছে মানুষের মাঝে। এমন পরিস্থিতিতে বাংলাদেশের জন্য স্বস্তির খবর হয়ে উঠেছে রেকর্ড পরিমাণ বোরো ধান উৎপাদনের ঘটনা। গম, ভুট্টা, আলুসহ অন্যান্য খাদ্যপণ্যের উৎপাদনও এ বছর আগের চেয়ে ভালো।

করোনায় শিল্পকারখানার উৎপাদন স্থবির হয়ে পড়লেও কৃষিই এখন দেশের মানুষের জন্য সবচেয়ে বড় সান্ত্বনা। চাল উৎপাদনের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের সাফল্যের স্বীকৃতি এসেছে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রীয় সংস্থা মার্কিন কৃষি বিভাগের (ইউএসডিএ) পক্ষ থেকে।

বলা হয়, কয়েক বছর ধরে ধারাবাহিকভাবে চাল উৎপাদন বেড়ে যাওয়ায় ইন্দোনেশিয়াকে টপকে চাল উৎপাদনে তৃতীয় বৃহত্তম দেশ হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। মার্কিন কৃষি বিভাগের পূর্বাভাস বলছে, চলতি অর্থবছরে (২০১৯-২০) উৎপাদন ৩ কোটি ৬০ লাখ টন ছাড়িয়ে যাবে। এর মধ্য দিয়ে বিশ্বের তৃতীয় শীর্ষ চাল উৎপাদনকারী হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ।

এত দিন ধরে চীন ও ভারতের পর তৃতীয় স্থানটি ছিল ইন্দোনেশিয়ার। তবে এবার ইন্দোনেশিয়াকে সরিয়ে সে অবস্থানে উঠে আসছে বাংলাদেশ। চলতি অর্থবছরে আমন মৌসুমে রেকর্ড উৎপাদন হয়েছে। আবার গত আউশ মৌসুমেও চালের উৎপাদন বৃদ্ধি পেয়েছে। সর্বশেষ চলতি বোরো মৌসুমে সাড়ে ৪ লাখ টন বাড়তে পারে চালের উৎপাদন। তিন মৌসুমে উৎপাদন বৃদ্ধির সম্মিলিত ফলই বাংলাদেশ শীর্ষ তিনে চলে আসার মূল কারণ বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

চাল উৎপাদনে বাংলাদেশের তৃতীয় স্থানে উঠে আসা নিঃসন্দেহে আশাজাগানিয়া ঘটনা। তবে এতে আত্মপ্রসাদের কোনো সুযোগ থাকা উচিত নয়। কৃষি আধুনিকীকরণের মাধ্যমে খাদ্য উৎপাদন আরও বাড়াতে হবে বলে মনে করে বিশ্লেষকরা।