সর্বশেষ
|
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, আপডেট : ২৩ জানু ২০২০ ০২:০১ ঘণ্টা

পদ্মা সেতুতে বসল ২২তম স্প্যান, দৃশ্যমান ৩৩০০ মিটার

চেম্বার ডেস্ক: মুন্সীগঞ্জের মাওয়া প্রান্তে বসানো হয়েছে পদ্মা সেতুর ২২তম স্প্যান। আজ বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার সময় সেতুর ৫ ও ৬ নম্বর পিলারে ‘ওয়ান-ই’ স্প্যানটি বসানোর মাধ্যমে দৃশ্যমান হলো সেতুর তিন হাজার ৩০০ মিটার।

২১তম স্প্যান বসানোর ৮ দিনের মাথায় বসল ২২তম স্প্যানটি। তবে এ স্প্যানটি ২৫ জানুয়ারি বসানোর কথা থাকলেও চাইনিজ নিউ ইয়ার হওয়ার কারণে তা দুই দিন এগিয়ে আনা হয়েছে।

সকাল সাড়ে ৮টার দিকে মুন্সীগঞ্জের মাওয়া কুমারভোগ কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে ধূসর রঙের ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্যরে স্প্যানটিকে নিয়ে সেতুর ৫ ও ৬ নম্বর পিলারের কাছে রওনা দেয় তিন হাজার ৬০০ টন ধারণক্ষমতার ভাসমান ক্রেন ‘তিয়ান-ই’।

সকাল পৌনে ১০টায় তা সেতুর কাছে গিয়ে পৌঁছে। ভাসমান ক্রেনটি নোঙর করে পজিশনিং করে ইঞ্চি ইঞ্চি মেপে স্প্যানটিকে তোলা হয় পিলারের উচ্চতায়। রাখা হয় দুই পিলারের বেয়ারিং এর ওপর। স্প্যান বসানোর জন্য উপযোগী সময় থাকায় এবং সব ধরনের পরীক্ষা-নিরীক্ষা সফলভাবে সম্পন্ন হওয়ায় প্রকৌশলীরা অল্প সময়ের মধ্যেই স্প্যান বসাতে সক্ষম হন।

পদ্মা সেতুর সহকারী প্রকৌশলী হুমায়ুন কবীর এসব তথ্য নিশ্চিত করে জানান, ৬ ও ৭ নম্বর পিলারের স্থায়ীভাবে বসেছে ওয়ান-এফ স্প্যানটি। আর তার ঠিক সঙ্গেই বসানো হলো এই স্প্যানটিও।

পদ্মা সেতুতে ৪২টি পিলারের ওপর বসবে ৪১টি স্প্যান। ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু হয়। মূল সেতু নির্মাণের জন্য কাজ করছে চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি (এমবিইসি) ও নদী শাসনের কাজ করছে দেশটির আরেকটি প্রতিষ্ঠান সিনো হাইড্রো কর্পোরেশন।

৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ পদ্ম বহুমুখী সেতুর মূল আকৃতি হবে দোতলা। কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে নির্মিত হচ্ছে এ সেতুর কাঠামো।