|
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, আপডেট : ০১ আগ ২০১৯ ১১:০৮ ঘণ্টা

কানাইঘাট সরকারি কলেজে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড, শিক্ষার্থী বহিষ্কার

কানাইঘাট প্রতিনিধি: ক্লাসরুমে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড সংঘটিত করায় কানাইঘাট সরকারী কলেজের একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী ফজলুল করিমকে কলেজ থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করেছেন কলেজ কর্তৃপক্ষ।

 

অভিযোগে জানা যায়, গত বুধবার দুপুর ১২টায় কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির বাংলা বিষয়ের ক্লাস চলাকালীন ক্লাসের ভিতরে প্রবেশ করে একাদশ শ্রেণির ছাত্র ফজলুল করিম ছাত্রবেশী বহিরাগত জুবের আহমদকে নিয়ে গল্পগুজবে মেতে ওঠে।

 

এ সময় ক্লাসরত শিক্ষার্থীরা তাদের এমন কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদ করলে বহিরাগত জুবের আহমদ ও ফজলুল করিমসহ তাদের কয়েকজন সহযোগী উত্তেজিত হয়ে ক্লাসরত শিক্ষার্থীদের উপর চড়াও হয়। তারা ক্লাসের বেঞ্চ ভেঙ্গে ও লাঠি-সোটা নিয়া শিক্ষার্থীদের উপর ছুড়ে মারে। ক্লাসে অবস্থানরত বিশেষ করে ছাত্রীরা শোর চিৎকার শুরু করলে বহিরাগত জুবের আহমদের হামলায় রক্তাক্ত আহত হন একাদশ শ্রেণির ছাত্রী তাহমিনা আক্তার। তাৎক্ষনিক তাকে কলেজের শিক্ষকরা উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করেন। এ নিয়ে কলেজ ক্যাম্পাসে চরম উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে ঘটনার পরই শিক্ষার্থীদের ছুটি দেওয়া হয়।

 

এ ঘটনায় অধ্যক্ষ শামছুল আলম মামুনের সভাপতিত্বে কলেজের শিক্ষক মিলনায়তনে তাৎক্ষনিকভাবে কলেজ স্টাফ কাউন্সিলের এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় কলেজের সকল বিভাগের শিক্ষকদের উপস্থিতিতে সিদ্ধান্তক্রমে কলেজের ক্লাসরুমে সন্ত্রাসী ঘটনার সাথে জড়িত শিক্ষার্থীদের চিহ্নিত করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়। সে সিদ্ধান্ত অনুযায়ী একাদশ শ্রেণির ছাত্র ফজলুল করিম দ্বাদশ শ্রেণির ক্লাস চলাকালীন সময়ে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের কারণে তাকে কলেজ থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়।

 

এদিকে আহত শিক্ষার্থী তাহমিনা আক্তার তার উপর হামলার ঘটনায় জড়িত বহিরাগত জুবের আহমদ ও বহিষ্কৃত শিক্ষার্থী ফজলুল করিমের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে কলেজের অধ্যক্ষ শামছুল আলম মামুন বরাবরে বৃহস্পতিবার লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

 

এ ব্যাপারে কলেজের অধ্যক্ষ শামছুল আলমের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, বুধবার দ্বাদশ শ্রেণির বাংলা ক্লাস চলাকালীন সময়ে সৃষ্ট ঘটনায় তাহমিনা আক্তারকে রক্তাক্ত করার প্রেক্ষিতে একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী ফজলুল করিমকে কলেজ থেকে স্থায়ী ভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে। কলেজ ক্যাম্পাসের সার্বিক সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখতে এ ঘটনার সাথে জড়িতদের চিহ্নিত করে কঠোর সিদ্ধান্ত গ্রহনে সকল শিক্ষক একমত পোষণ করেছেন। বিষয়টি কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল আহাদকে জানানো হয়েছে বলে তিনি জানান।

 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কলেজের অসংখ্য সাধারণ শিক্ষার্থীরা জানিয়েছেন- গুটিকয়েক শিক্ষার্থী কর্তৃক কলেজ ক্যাম্পাসে নানা ধরনের অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের কারণে কলেজের সার্বিক শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ বিনষ্ট হচ্ছে। বুধবারের ঘটনার সাথে জড়িতদের চিহ্নিত করে ভবিষ্যতে যেন কলেজ ক্যাম্পাসে এ ধরণের অপরাধ কর্মকাণ্ড সংঘটিত করতে না পারে সে ব্যপারে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানিয়েছেন তারা।