সর্বশেষ
|

বর্তমান ছাত্রলীগের রাজনীতিতে ত্যাগের সংজ্ঞা কি?

চেম্বার ডেস্ক: বর্তমান সময়ে যারা ছাত্রলীগ করতেছেন তাদের ৯৫% নেতা কর্মীরা বিরুধী দলে থাকা অবস্থায় ছাত্রলীগ করেনি, ছাত্রলীগ করার অনেকের বয়সও ছিলনা,তাদের ছাত্রলীগ করাটা শুরুই হয়েছে ২০০৮ এর নির্বাচনে দল ক্ষমতায় আসার পর থেকে,এদের মধ্যে থেকে কেউ সংগঠনের কাজ বেশি করেছে আবার কেউ কম করেছে,এটাতো সংগঠনের দ্বায়িত্ব ও কর্তব্যের মধ্যে পড়ে,সবাই যখন নিজেদের ত্যাগী ত্যাগী বলে গলা ফাটাচ্ছেন তখন সংগঠনের ত্যাগীদের সংজ্ঞা জানতে বড্ড বেশি ইচ্ছে করে,আপনারা কি ২০০১-২০০৬  বিএনপি- জামাতের শাসনামল দেখেছেন? যুবলীগ ছাত্রলীগের নেতা কর্মীদের নিধনের  নামে সেনাবাহিনী দ্বারা পরিচালিত অপারেশন ক্লিনহার্টের কথা শুনেছেন?সেই সময় একেকটা নেতা কর্মী তাদের প্রিয় সংগঠন কে প্রাণের চেয়েও বেশি ভালবেসে সকাল প্রকার ভয়ভীতি আর রক্ত চুক্ষুকে  উপেক্ষা করে জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রত্যেকটি আদেশ আর নির্দেশ কে অক্ষরে অক্ষরে পালন করেছিল,তারাই ছিল ছাত্রলীগের আসল ত্যাগী নেতা কর্মী। এর পরে যারা দলের সু সময়ে এসে রাজনীতি করেছেন তারা কিসের ত্যাগী? কার জন্য ত্যাগ স্বীকার  করেছেন, বলতে পারেন? এসকল উপাধী নিজেদের নামের সাথে ব্যবহার করলেই ত্যাগী হওয়া যায় না, আমরা যারা দলের দুর্দিনে রাজপথে থেকে সকল প্রকার আন্দোলন আর সংগ্রাম ফেইস করেছি আমরা তো কেউ ই নিজেদের কে ত্যাগী ত্যাগী বলে ঢোল পেটাচ্ছি না, প্রকৃত ছাত্রলীগকে সকল নোংরামি বাদ দিয়ে সংগঠনের শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখতে সবাইকে একে অপরের হাতে হাত মিলিয়ে ঐক্যবদ্ধ ভাবে  সংগঠনের জন্য কাজ করতে হবে।

 

হামজা হেলাল

সাবেক বিভাগীয় উপ-সম্পাদক

সিলেট জেলা ছাত্রলীগ।