সর্বশেষ
|

মুক্তি পাচ্ছে চবি ক্যাম্পাস ভিত্তিক টেলিফিল্ম ‘২৬ এর গল্প’

মাহবুব এ রহমানঃ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়। আয়তনে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় বিশ্ববিদ্যালয়। ছোট-বড় সবুজ পাহাড় বেষ্টিত ক্যাম্পাস। প্রকৃতি যেন দু’হাত ভরে সাজিয়েছে পুরো ক্যাম্পাস। শহর থেকে ক্যাম্পাস প্রায় ২২ কিলোমিটার দূর। তাই শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের জন্য ১৯৮০ সালে চালু হয় শাটল ট্রেন। পৃথিবীর সব বিশ্ববিদ্যালয় থেকে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাতন্ত্র্যটা এখানেই। যুক্তরাষ্ট্রের সান ফ্রান্সিসকো বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী পরিবহণের জন্য ছিল নিজস্ব ট্রেন। কিন্তু বর্তমানে তা বন্ধ থাকায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ই পৃথিবীর একমাত্র শাটল ট্রেনের বিশ্ববিদ্যালয়। ২টা শাটলের পাশাপাশি আছে ১টি ডেমুও। প্রতিদিন প্রায় দশ থেকে বার হাজার শিক্ষার্থীর বিশ্ববিদ্যালয় যাতায়াতের মাধ্যম এই শাটল ট্রেন। শাটল দেখতে শুধু যে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে দর্শনার্থীরা আসেন তা কিন্তু নয়, বিদেশ থেকেও শাটল দেখতে চবিতে আসার অনেক নজির আছে। শাটলই হল চবির প্রাণ। অনেকে এই শাটল কে ‘ভ্রাম্যমাণ বিশ্ববিদ্যালয়’ও বলেন। আড্ডা, গল্প, গান, পড়ালেখা কী নেই এই শাটলে! বিভিন্ন বগিতে সবাই একসাথে গান গেয়ে মাতিয়ে রাখে পুরো ট্রেন। আরেকটা মজার বিষয় হল সিট ধরা! শিক্ষার্থী তুলনায় শাটলের বগি কম হওয়াতে ট্রেন আসার সাথে সাথে সবাই সিট ধরতে রীতিমত লিপ্ত হয় প্রতিযোগিতায়। যে আগে উঠে চেষ্টা করে বন্ধু-বান্ধবীর জন্য অনেকে গুলো সিট ধরার। বিষয়টি খারাপ লাগার চেয়ে ধীরে ধীরে উপভোগ্য হয়ে দাঁড়ায় সবার কাছে। এমন করেই শাটলের সাথে গভীর সখ্যতা গড়ে উঠে শিক্ষার্থীদের। এই শাটল নিয়ে রচিত হয়েছে অনেক ছড়া-কবিতা,গল্প। এবার মুক্তি পাচ্ছে হিসাব বিজ্ঞান চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী তারিক সাফুল্লাহ আলভীর রচনা ও পরিচালনায় ক্যাম্পাস ভিত্তিক টেলিফিল্ম ‘২৬ এর গল্প’। Pragmat, Ingenious Engineering and Construction limited. এর সার্বিক সহযোগিতায় টেলিফিল্মটিতে অভিনয় করেছেন হিসাব বিজ্ঞান বিভাগ সহ বেশ কয়েকটি বিভাগের শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীবৃন্দ। ইতোমধ্যে মোঃ নেওয়াজ আসিফের কথা, সুর ও কণ্ঠে টেলিফিল্মের গান ‘শাটল ট্রেন’ মুক্তি পেয়েছে ইউটিউবে। টেলিফিল্ম ‘২৬ এর গল্প’ ও মুক্তি পাচ্ছে শিগগির।

[লেখকঃ শিক্ষার্থী, চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়]