সর্বশেষ
|

কমেডিয়ান মুরাদ অভিনয় নৈপুণ্যে সিলেটিদের হৃদয়ে

 

শাহজাহান শাহেদঃ সিলেটের সাংস্কৃতিক পরিমন্ডলে ইদানিংকালে শুদ্বধারার কৌতুকাভিনয় পরিবেশনে চমৎকার নৈপুণ্য প্রদর্শন করে সংস্কৃতিমোদি মানুষের কাছে জনপ্রিয় হয়ে উঠছেন তরুণ কমেডি অভিনেতা “বেলাল আহমেদ মুরাদ”। সিলেটি ভাষায় প্রচারিত এ নাটিকাগুলোতে দর্শকদের আনন্দ দেয়ার পাশাপাশি প্রতিটি নাটিকায় শিক্ষনীয় বিষয় লক্ষ্য রেখেই নির্মিত করেন অভিনেতা মুরাদ। ৪/৫ মিনিটের এই নাটিকা ভিডিওগুলোতে তিনি সমাজের বাস্তব নির্ভর সমস্যা, বিড়ম্বনা এবং অসংগতিপূর্ণ ভুলগুলো হাস্যরসের মাধ্যমে তুলে ধরছেন।

উদীয়মান অভিনেতা মুরাদ সিলেটের কলাপাড়া ঘাসিটুলা এলাকার বাসিন্দা। তার  পিতা মুক্তার আহমেদ এবং মাতা মোছাঃবিলকিস বেগম। চার ভাইয়ের মধ্যে তিনি সবার বড়। তিনি তাঁর মায়ের প্রচেষ্টায় মূলত অভিনয় জগতে পা বাড়ান। ২০০৬ সালে মঞ্চ নাটকের মাধ্যমে অভিনয় শুরু করেন জনপ্রিয় অভিনেতা মুরাদ। ২০০৮ সালে বৈশাখী টেলিভিশনের রিয়েলিটি শো পদ্মকুঁড়িতে অভিনয়ে সারাদেশের মধ্যে সেরা দশে স্থান পান। ইতিমধ্যে কমেডিয়ান মুরাদের নাটকগুলো ইউটিউবে ফেসবুকে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। তার আলোচিত নাটকগুলোর মধ্যে এমএলএম, বোকা জামাই, গেদনের বাপ, আস্তিক-নাস্তিক, তামাশা-১/২, ডিস্টার্ব ১/২/৩, পাতিনেতা ১/২/৩/৪, ওয়ার্ড মেম্বার, বরবাদ ছেলে, ভুয়া উকিল, ভুয়া ট্রাভেলস, ৪২০ সাংবাদিক ইত্যাদি।

অভিনেতা মুরাদ মূলত দুই আঙ্গিকে অভিনয় করেন। তন্মধ্যে একটি চরিত্র হচ্ছে বয়স্ক হিসেবে তথা বাবা মুরব্বি বা সমাজপতি ইত্যাদি সাজে অভিনয় নৈপুণ্য দেখান। আরেকটি চরিত্র তরুণ তথা তার বাস্তব চেহারা নিয়েই যে নাটিকাগুলোতে অভিনয় করে যাচ্ছেন।

নিউজচেম্বারের এ প্রতিবেদকের  সাথে কথোপকথনকালে জনপ্রিয় এ তরুণ অভিনেতা বলেন, “আমরা নাটিকাগুলো তৈরী করার সময় প্রচেষ্টা করেছি সমাজের বাস্তব সমস্যাগুলো তুলে ধরতে এবং সাথে একেকটা শিক্ষণীয় বার্তা দিতে। তার চেয়েও বড় যে বিষয়টি লক্ষ্য রেখেছি তা হচ্ছে, সিলেটের আঞ্চলিক ভাষাকে জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে পরিচয় করিয়ে দেয়ার ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা। অপসাংস্কৃতিক আগ্রাসন রোধ আর সুস্হধারার সংস্কৃতির প্রচার-প্রসারের বিষয়টি আমাদের মুখ্য। শুদ্ব সংস্কৃতি প্রিয় মানুষের সমর্থন, উৎসাহ উদ্দীপনা আর সার্বিক সহযোগিতা নিয়ে আমরা আমাদের কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে চাই নিয়মিতভাবে।”

সিলেটের সাংস্কৃতিক বোদ্বা এবং সংস্কৃতিপ্রেমীরা মনে করেন, অভিনেতা বেলাল আহমদ মুরাদের অভিনয়শৈলী চমৎকার। সে তার অভিনয় গুনাবলী দিয়ে জয় করে নিয়েছে অগনিত দর্শক-ভক্তদের হৃদয়। তার এ কার্যক্রম জাতীয় সাংস্কৃতিক অঙ্গনে সিলেটের ভাবমূর্তি উজ্জল করবে বলে সবার বিশ্বাস।