সর্বশেষ
|
প্রকাশ: শুক্রবার, আপডেট : ০৫ আগ ২০১৬ ০৩:০৮ ঘণ্টা

পেটের অস্বস্তি থেকে মুক্তির সহজ উপায়

 স্বাস্থ্য চেম্বার: অনেকেইfull_1854375500_1470378668-1 দীর্ঘদিন ধরে পেটের সমস্যায় ভুগেন। যেমন পেটে প্রায়ই ব্যথা হয়, কখনো মোচড় দিয়ে ওঠে। খাওয়ার পর অস্বস্তি। পায়ুপথে ব্যথা। বারবার মলত্যাগের চাপ আসে। আবার কেউ প্রায়ই আমাশয়ে ভোগেন।  

পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেও এসব সমস্যার সঠিক কারণ খুঁজে পাওয়া যায়নি। ডাক্তারি ভাষায় এ রোগের নাম ইরিটেবল বাওয়েল সিনড্রোম বা আইবিএস।

কারা আক্রান্ত হন? কেন?:
তরুণ ও মাঝবয়সীদের মধ্যে এ সমস্যা বেশি দেখা যায়। তবে সঠিক কারণ আজও অজানা। স্নায়ুঘটিত বা মনস্তাত্ত্বিক কারণে এ রোগ হয়, নাকি জীবাণুঘটিত কারণে—তা নিয়ে বিস্তর গবেষণা চলছে। সাধারণত প্রাথমিক অবস্থায় ডায়রিয়া বা রক্ত আমাশয়ের পর অন্ত্রের স্বাভাবিক কার্যক্রম খানিকটা সমন্বয়হীন হয়ে পড়ে এবং পরবর্তী সময়ে অন্যান্য উপসর্গ দেখা দেয়।

পরীক্ষা-নিরীক্ষা:
আইবিএসের লক্ষণের পাশাপাশি জ্বর, রক্তশূন্যতা, পায়ুপথে রক্তপাত বা শরীরের ওজন কমে যাওয়ার মতো সমস্যা থাকলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে এবং প্রয়োজনীয় পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে হবে।

চিকিৎসা নেবেন কীভাবে?:
ওষুধই আইবিএস রোগের মূল চিকিৎসা নয়। জীবনযাত্রায় কিছু পরিবর্তন করলে উপকার মেলে। আঁশজাতীয় খাবার, দুধ, চর্বিযুক্ত খাবারসহ কিছু নির্দিষ্ট খাবারে অস্বস্তি হয়ে থাকলে সেগুলো এড়িয়ে চলাই ভালো। ঢালাওভাবে কোনো খাবার বাদ দেওয়ার প্রয়োজন নেই। বরং কোষ্ঠকাঠিন্য থাকলে আঁশজাতীয় খাবার বেশি খেতে হবে। বিশুদ্ধ ও পরিচ্ছন্ন খাবার গ্রহণ করুন। প্রচুর পানি পান করুন। সন্ধ্যার পর চা ও অন্যান্য পানীয় না খাওয়াই ভালো। অন্তত ছয় ঘণ্টা নিশ্চিন্তে ঘুমান।

উদ্বেগ পরিহার করুন, বিশেষ করে পেট-সংক্রান্ত বিষয়ে দুশ্চিন্তা করা থেকে বিরত থাকুন। ডায়রিয়া হলেই বিভিন্ন অ্যান্টিবায়োটিক খাওয়া যাবে না। এতে সাময়িক উপকার পেলেও পরবর্তী সময়ে সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করতে পারে।